জাপানের মানুষের জীবনধারা

COVID-19: Thủ đô Tokyo (Nhật Bản) ghi nhận số ca nhiễm mới trong một ngày  cao nhất - Ảnh thời sự quốc tế - Văn hóa xã hội - Thông tấn xã

জাপানের মানুষের জীবনধারা মধ্যে রয়েছে অনেক বৈচিত্র। জাপানের মানুষের বয়স নিয়ে রয়েছে অনেক রহস্য। জাপানের প্রায় বিশ লক্ষ মানুষের বয়স ৯০ বছর বয়সের উপরে। এবং যার প্রায় ৭০ হাজার বয়স ১০০ বছরের বেশি।জাপানের মানুষের গড় আয়ু ৮৪.২ বয়স।এবং জাপানের পুরুষেরা গড়ে প্রায় ৮১.১ বছর বেচে থাকে।এবং জাপানের মেয়েদের ক্ষেত্রে বয়সটি একটু বেশি। মেয়েদের সাধারনত গড় আয়ু ৮৭.১ বছর বয়স। জাপানদের এই যে তাদের দীর্ঘ আয়ু সেটি তাদের জেনিটিকেল কোনো ফলাফল নয়।

জাপান সম্পর্কে কিছু মজার তথ্য

বরং এটি হচ্ছে জাপানিদের খাদ্যাবাস এবং জীবনধারার ফলাফল।জাপানের মানুষেরা প্রচুর টাটকা শাখ- সবজি এবং তারা মৌসুমি খাবার এবং তারা ঘরোয়া খাবার বেশি গ্রহন করে থাকে।এখানের মানুষরা সামুদ্রিক খাবার বেশি পছন্দ করে। তারা মাংস খেতে বেশি পছন্দ করে না। এর ফলে জাপানের স্থুলতার হার মাত্র ৬.৬ শতাংশ। যা সাধারনত পৃথিবীর সর্বনিম্ন। আর প্রকৃত পক্ষে জাপান হচ্ছে বিশ্বের মাছ খাওয়া দেশগুলোর মধ্যে একটি দেশ।

অবাক দেশ জাপানের ৩৪টি মজার তথ্য । 34 interesting facts about Japan

জাপানে যেসকল মাছ রয়েছে সেগুলোতে কোলেস্টেরল এবং ক্ষতিকর চর্বির পরিমান খুবই কম ফলে জাপানের মানুষের হৃদরোগের ঝুকি ৩৬ শতাংশ কম।জাপানের দীর্ঘ রোগের আরেকটি কারন হচ্ছে এরা অধিক চা গ্রহনরী। কারন চায়ে অ্যান্টি - অক্সিডেন্টের পরিমান কফির চেয়ে বেশি। চা প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্বি করে এবং ধ্বংশ করে ক্যানসার এবং কোলেস্টেরেল।এছাড়াও জাপানের মানুষেরা বেশিরভাগ সয়া এবং সমুদ্র শৈবাল খেয়ে থাকে।

জাপানের অসাধারণ কিছু বিষয়, যা সারা বিশ্বের উদাহরণ হতে পারে | 443906 |  কালের কণ্ঠ | kalerkantho

তারা সামুদ্রিক শৈবাল খেয়ে থাকে কারন হচ্ছে এক কাপ সমুদ্র শৈবালে ২-৯ গ্রাম প্রোটিন থাকে বলে জানা যায়। এছাড়াও এটিতে প্রকৃত আয়োডিন থাকে, যেটি সাধারনত থাইরয়েডের জন্য অত্যন্ত উপকারী। এছাড়াও আমরা দেখে থাকি যে জাপানের যে চিকিৎসা ব্যবস্থানা রয়েছে তা অত্যান্ত কার্যকরী। তাদের রাষ্ট্র চিকিৎসার জন্য প্রায় ৯০ শতাংশ ব্যায় বহন করে থাকে। এছাড়া জাপানিরা কর্মময় জীবন অতিবাহিত করতে ভালোবাসে। তারা সকলেই কর্মের সাথে লেগে থাকতে পছন্দ করে। তারা অফিসে যাওয়ার সময় কোনো গাড়ি ব্যবহার করে না। তারা হেটে বা সাইলেকে তাদের অফিসে যায়।

জাপানে চাকরির সুযোগ পেতে যা করতে হবে

তাদের দেশে বয়স্করাও যতদিন সম্ভব তাদের শারীরিক পরিশ্রম অব্যহত রাখে। এখানে জাপানিরা প্রায় ৮৫ ভাগ বেশি মানুষেরা ঘুমানোর আগে গোছল করে তারপর ঘুমাতে যায়। তারা গোসলের সময় গরম পানি ব্যবহার করে তাদের শরীরের দূষন দূর করার জন্য। পানির উষ্ণতা শরীরের প্রদাহ কমায় এবং মানুষিক চাপ কমায়। এখানের গরম পানি দিয়ে গোসল করে কারন গরম পানি রক্ত সঞ্চার করে এবং রক্ত প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্বি করে।জাপানের বয়স্ক মানুষদের জীবন্ত সম্পদ হিসেবে অ্যাখায়িত করা হয়। সামাজিকভাবে দেওয়া হয় সম্মান।

Leave a Comment