সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশনে ওয়েব হোষ্টিং এর ভূমিকা

সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশনের উপরে বাংলা ভাষায় অনেক ভাল ভাল লেখা দেখে থাকলেও হোষ্টিং প্রতিষ্ঠানের ভূমিকার উপরে তেমন আলোচনা শুনি নাই। তাই আমি নিজেই লিখতে বসলাম। ইদানিং ওয়েব হোষ্টিং এর উপরে কাজ করাতে গিয়ে বেশ কিছু বিষয় লক্ষ করতে হয়েছে তার-ই আলোকে পোষ্টটি লেখা।

ওয়েব হোস্ট কেনার সময় অনেকে দুইটি বিষয়কে গুরুত্বপূর্ণ মনে করেন। বেশ কিছু বিষয় সম্পর্কে সাম্যক ধারনা নিয়ে ওয়েব হোষ্টিং কেনা উচিৎ।
সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশনে ওয়েব হোষ্টিং এর ভূমিকা

- হার্ডডিস্ক এ কি পরিমান জায়গা থাকবে?

- প্রতিমাসে কতটুকু ব্যান্ডউইথ পাওয়া যাবে?

- মাসিক/বাৎসরিক খরচটা সেই তুলনায় কত?

কিন্তু বেসিক বেশ কিছু জিনিস ছাড়াও আরও অনেককিছুই ভাবতে হবে। আনলিমিটেড ওয়েব হোষ্টিং প্লানের সবচেয়ে বড় সমস্যা হচ্ছে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন নিয়ে। সাধারনতঃ আপনার জন্য প্রদানকৃত ওয়েব সারভারে অনেকগুলো ওয়েবসাইট একসাথে চালানো হয়। একই আইপিতে কয়েকশত পর্যন্ত সাইট চলে। এই সাইটগুলোর মানের উপরে আপনার সাইটের সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন কখনো কখনো নির্ভরশীল হতে পারে। সেই সাইটগুলো যদি স্ক্যাম সাইট হয় তবে বিশাল বিপদ হবে। অনেক ধরনের সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন করেও লাভ নাও হতে পারে।

সার্চ ইঞ্জিন সমুহ একই আইপির সাইটগুলোকে একই প্রতিষ্ঠানের সাইট ভেবে নিতে পারে।একই সারভারে কোন কোন সাইটের জন্য সার্চ ইঞ্জিনগুলো কালো আইপি তালিকা তৈরী করে ফেলে। ফলে সেই সব সাইটের কারনে আপনার সাইট কালো তালিকাভূক্ত হয়ে যেতে পারে। অনেক অপটিমাইজেশনের পরেও সার্চ ইঞ্জিন রোবট দ্রুত ইনডেক্স নাও করতে পারে আপনার সাইট।

অনেক প্রতিষ্ঠানই ফ্রি হোষ্টিং প্রদান করে থাকে। আর সাধারনতঃ একই আইপিতে সেই সাইটগুলো চলতে দেখা যায় । যারা ফ্রি হোষ্টিং গ্রহন করে তারা যদি ভাল কোন সাইট না চালায় এবং আপনি যদি সেই আইপিভূক্ত ফ্রি হোষ্টিং গ্রহণ করে থাকেন তাহলে বিপদের আসংখ্যা থেকে যায়।

একইভাবে ভাল সাইটগুলো যেই সারভারে/আইপিভূক্ত থাকে সেখানে আপনার ফ্রি/শেয়ার হোষ্টিং নিলে সহজেই সার্চ ইঞ্জিনের সুদৃষ্টি পেতে পারেন।

সবচেয়ে ভাল সমাধান হলো নিজস্ব আইপি নিয়ে সাইট চালানো। এবং নিজস্ব আইপির জন্য আপনাকে মাসিক টাকা দিতে হবে। বিশ্বসেরা হোষ্টিং প্রতিষ্ঠানগুলো সাধারনত সর্ব নিন্ম আইপি প্রতি মাসিক ২ ডলার করে রাখে। রিসেলার, ভিপিএস বা ডেডিকেটেড সার্ভারের সাথে অনেক সময় দুই বা ততোধিক ফ্রি আইপি প্রদান করতে পারে। দেশ ভেদেও ওয়েব হোষ্টিং বিশেষ ভূমিকা রাখতে পারে। আশা করা যায় পরবর্তিতে এই সব বিষয়ে আরোও বেশি আলোচনা করা হবে। আপাতঃ এই বেপারে আপনাদের অভিজ্ঞতা মন্তব্য অংশে শেয়ার করতে পারেন।

8 thoughts on “সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশনে ওয়েব হোষ্টিং এর ভূমিকা”

    1. @শিবলী,সবার তো SEO নিয়ে এত ভাবা দরকার হয় না। তবে ওয়েবসাইট মালিক ও ডিজাইনারকে কিছু কিছু ভাবতে হয়। আমাদের একটা সাইট সম্ভবতঃ আইপির কারনেই প্যাজর‌্যাংক অনেক কম। ধন্যবাদ মতামতের জন্য।

  1. ইমরান

    SEO করতে বোরিং লাগে! কিন্তু ইউনিকুয়া IP ছাড়া সার্টিফিকেট পাওয়া যায়না। তাই আমাকে নতুন সার্ভারের খোজে নামতে হচ্ছে।

    অফটপিকঃ
    ইয়ে………লগিন হবার অপশনটা কোথায়? নাকি ডাইরেক্ট wp-admin -এ যাব?

  2. এটা জানতাম না যে আনলিমিটেডে একি সাথে অনেক গুলা সাইটকে স্পেস দেয়া হয়……… অনেক ধন্যবাদ মাহবুব ভাই। এখন থেকে তাহলে হোস্টিং এর ক্ষত্রেও ভাবতে হবে এসইও নিয়ে।

Leave a Comment