ব্যাটমিন্টন ইতিহাস

ঊনিশ বিশ শতাব্দির মধ্যেভাগে ভারতে ব্রিটিশ সেনারা এই খেলাটি উদ্বান করে।তারা এই ব্যাটমিন্টন খেলাটিকে খেলার সময় মাঝখানে একটি নেট যুক্ত করে খেলাটি চালু করেছিলেন।ব্রিটিশ গেনিসন নগরী পুনাই শহরে এই ব্যাটমিন্টন খেলা অনেক জনপ্রিয় ছিল।আর এই খেলা র জনপ্রিয় পুনাইতে হওয়ার কারনে এই খেলার অপর নাম হচ্ছে পুনাই।ঊনিশ বিশ শতাব্দির শেষভাগে এই খেলাটি ইংল্যান্ডে ব্যাপকভাবে জনপ্রিশতা লাভ করে।

এরপর ১৯৩০ সালে বিশ্ব ব্যাটমিন্টন নিয়ন্ত্রক সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল ব্যাটমিন্টন ফেডারেশন বর্তমান ব্যাটমিন্টন ওয়াল্ড ফেডারেশন প্রতিষ্ঠিত হয়। ব্যাটমিন্টন খেলা হচ্ছে একটি জনপ্রিয় খেলা।বেটমিন্টন খেলার ফলে আমাদের শারীরিক ও অনেক উপকার হয়। ব্যাটমিন্টন বলে বুঝি এটি একটি রেকেট ক্রিয়া।এই খেলাটি খেলতে হয় এককভাবে বা জোড়া জোড়া মিলে।এই ব্যাটমিন্টন খেলা খেলতে হলে একটি ন্যাট দ্বারা বিভক্ত এবং কক এর প্রয়োজন হয়। এটি খেলতে হয়ে প্রথমে নেট দ্বারা ব্যাটটি দিয়ে ফেদারটি স্পর্শ করিয়ে বিপক্ষ দলের খেলোয়ারের কাছে পাঠাতে হয়। ফেদারটি মাটিতে স্পর্শ করাতে পারলে এক পয়েন্ট হয়।

আধুনিক বিশ্বে ইউরোপের বাহিরে চীন, ইন্দোনেশিয়া, মালোশিয়া এবং কোরিয়াতেও ব্যাটমিন্টন খুব জনপ্রিয়।এরপর ১৯৯২ সালে পাঁচটি ইভেন্ট নিয়ে ব্যাটমিন্টন খেলা অনুষ্ঠিত হয়। এই ইভেন্টগুলো ছিল ছেলে-মেয়ে সিঙ্গেল ম্যাচ।ছেলে-মেয়ে ডাবল ম্যাচ এবং শুধু ডাবল।আনুষ্ঠানিক গেমগুলি একটি আয়তক্ষেত্রাকার ইনডোর কোর্টে খেলা হয়। পয়েন্টগুলি র‌্যাকেটের সাথে ফেদারটিকে আঘাত করে এবং বিরোধী পক্ষের আদালতের অর্ধেকের মধ্যে অবতরণ করে স্কোর করা হয়।শাটলকক হ'ল একটি পালকযুক্ত বা প্লাস্টিকের ফোমজাতীয় যা অন্যান্য অনেক খেলায় ব্যবহৃত বল থেকে আলাদাভাবে উড়ে যায়।গেমটি ব্রিটিশ ভারতে ব্যাটেলডোর এবং শাটলককের আগের খেলা থেকেই বিকশিত হয়েছিল। ইউরোপীয় নাটকটি ডেনমার্কের সুনাম বয়ে এনেছিল তবে সাম্প্রতিক প্রতিযোগিতাগুলি চীন দ্বারা সুনামধরি বিস্তার করে খেলাটি এশিয়াতে খুব জনপ্রিয় হয়েছে।খেলার উচ্চ স্তরে খেলাটি দুর্দান্ত ফিটনেসের দাবি করে খেলোয়াড়দের বায়বীয় স্ট্যামিনা, তৎপরতা, শক্তি, গতি এবং নির্ভুলতার প্রয়োজন। এটি একটি প্রযুক্তিগত খেলা, ভাল মোটর সমন্বয় এবং পরিশীলিত র‌্যাকেট আন্দোলনের বিকাশ প্রয়োজন।আর্ন্তরজাতিক খেলা হচ্ছে ব্যাটমিন্টন। এটি আমাদের বিনদনের একটি মধ্যেম। এই খেলার মধ্যে শারীরিক ব্যায়াম ও হয়। এই খেলাটি বেশিরভাগ শীতকালে দেখা যায়। এই খেলাটি শীতকালীন খেলা হিসেবে অনেক পরিচিত।

Leave a Comment