লিনাক্স ও লিনাক্স ডিস্ট্রিবিউশন

লিনাক্স শব্দটা প্রায় সবাই সুনে থাকলেও লিনাক্সের অনেক ডিস্ট্রিবিউশন আছে তা অনেকে শোনে নি। আর কর্ম ক্ষেত্রে যেহেতু লিনাক্সের কোন না কোন ডিস্ট্রিবিউশন নিয়েই কাজ করতে হবে তাই এই টিউটোরিয়ালটি লেখার প্রয়াস পাচ্ছি।

লিনাক্সঃ

১৯৯১ সালে লিনাস টরভেল্ড যে অপারেটিং সিস্টেমের কার্নেলটি ওয়েবে ছেড়েছেন সেটি ছিল ফ্লপি ড্রাইভে ধারন করার মতোই ছোট লিনাক্স কার্নেল। লিনাক্স অপারেটিং সিস্টেমটি জন্মলগ্ন থেকেই ফ্রি। বর্তমান সময়ে মেইনফ্রেম এবং বড় বড় সার্ভার কম্পিউটারের অপারেটিং সিস্টেম বলতে লিনাক্সই বুঝে থাকে। তবে বিশ্বের খুব কম ডেক্সটপেই লিনাক্স দেখা যায়। ইদানিং কালের মোবাইল ফোন, ট্যাব, স্মার্ট টেলিভিশন ও অন্যান্য অনেক প্যারিফ্যারাল ডিভাউজ (যেমন- কার্ড/ফিঙ্গার পাঞ্চ মেশিন, রোবট) লিনাক্সের কার্নেল ব্যবহার করে।

লিনাক্স সম্পর্কে বেশি কিছু আলোচনা না করে এর ডিস্ট্রিবিউশনগুলোর দিকে এগিয়ে যাবো। লিনাক্স সম্পর্কে আরো জনতে উইকি দেখতে পারেন।

লিনাক্স ডিস্ট্রিবিউশনঃ

লিনাক্স কার্নেল যেহেতু মুক্ত। এবং এর উপরে যে কেউ হাত দিতে পারে, তাই অনেকেই লিনাক্স কার্নেল দিয়ে নিজেদের প্রয়োজন ও ইচ্ছা মতো অপারেটিং সিস্টেম বানিয়ে নিয়েছে। অনেক সময় একে ডিস্ট্রো বলে থাকে। ডেবিয়ান একটি লিনাক্স ডিস্ট্রো- এভাবে বলা হয়ে থাকে।

লিনাক্সের অনেকগুলো জনপ্রিয় ডিস্ট্রো রয়েছে। তার মধ্য থেকে কতগুলো উল্লেখ করি। পরবর্তিতে আমি কয়েকটি সেটআপ দেওয়া নিয়ে  টিউটোরিয়াল লিখবো ইনশাল্লাহ।

আর্ক লিনাক্স (Arch Linux)

arch-linux

কমিউনিটির মাধ্যমে সফটওয়্যার প্যাকেজ তৈরিতে উৎসাহি গ্রুপের তৈরী লিনাক্স অপারেটিং সিস্টেম আর্ক লিনাক্স। ডেক্সটপ অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে ব্যবহার করার কথা বিবেচনা করে গ্রাফিক্যাল ইন্টারফেস তৈরী করা হয়েছে।

ডেবিয়ান (Debian)

অনেক আগে থেকে ডেবিয়ান নিয়ে কাজ করা হয়। এখন ডেবিয়ানের গ্রাফিক্যাল ইন্টারফেস থাকলেও ডেবিয়ান দিয়ে সারভারের কাজ অনেক আগে থেকেই চলে আসছে। ডেবিয়ানের ওয়েব সাইট থেকে বিনামূল্যে .iso ফাইল নামিয়ে ইনস্টল করে নিতে পারেন।

লিনাক্স মিন্ট (Linux Mint)

লিনাক্স মিন্ট অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি ডেক্সটপ লিনাক্স ভিত্তিক অপারেটিং সিস্টেম। মিন্টে চালানোর জন্য ত্রিশ হাজারের বেশি সফটওয়্যার প্যকেজ রয়েছে।

উবুন্তু এবং কুবুন্তু (Ubuntu and Kubuntu)

ubuntu1204-precisepangolin

ব্রিটিশ প্রতিষ্ঠান ক্যনোনিক্যাল এই ডিস্ট্রিবিউশনটি ডেভলপ করে। উবন্তু ডেস্কটপ এবং সারভার উভয় ক্ষেত্রেই জনপ্রিয়। এর নিজস্ব সফটওয়্যার ম্যানেজার এটিকে ইউনিক করেছে। ওয়েবে উবুন্তুর বেশ ভাল কমিউনিটি আছে। উবুন্তুর আরেকটি সংস্করণ কুবুন্তু।

ফেডোরা (Fedora)

ফেডোরা আরেকটি জনপ্রিয় লিনাক্স ডিস্ট্রো।

সেন্টওএস (CentOS)

সারভার হিসেবে সে্ন্টওএস অনেক জনপ্রিয়। সেন্টওএস এর আগের ভার্শনগুলোতে গ্রাফিক্যাল উইজার ইন্টারফেস না থাকলেও এখনকার ভার্শনে আছে। এক ভার্শনের কমান্ড অন্য ভার্শনে কাজ নাও করতে পারে। সেন্টওএসের সর্বশেষ ভার্শন ৭.০ কমান্ড লাইন অনেকটা ফেডোরার মতো।

রেড হ্যাট লিনাক্স (Red Hat Enterprise Linux)

আমেরিকান প্রতিষ্ঠান রেড হ্যাট এর ডিস্ট্রো। এটি লাইসেন্স সংগ্রহ করে নিতে হয়।

ওরাকল লিনাক্স (Oracle Linux)

রেড হ্যাট লিনাক্স ডেভলপ  করে করা হয়েছে। এটি ওরাকল (প্রতিষ্ঠান) পরিচালনা করে।

ক্রোম ওএস (Chrome OS)

chrome-os

গুগল ক্রোম ওএস তৈরী করে। এটি ইদানিং কালে জনপ্রিয় ডেস্কটপ অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে উম্মুক্ত করার চেষ্টা করা হচ্ছে। দিন দিন এর এপস সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। ইদানিং  অনেক ল্যাপটপেই ক্রোম ওএস দেখা যায়।

এনড্রয়েড (Android)

এনড্রয়েডকেও আরেকটি লিনাক্স ডিস্ট্রিবিউশন বলা যায়। তবে এটি অনেক বেশি ডেভলপ করার কারনে অনেকেই এটিকে লিনাক্স মনে করে না। এনড্রয়েডের ফাইল সিস্টেম এবং কার্নেল দেখে যে কেউ বুঝে যায় যে এটি একটি লিনাক্স সংস্করণ।

এছাড়াও নাম জানা অজানা অনেক লিনাক্স ডিস্ট্রো রয়েছে। হার্ডওয়্যার নির্মাতাগণ লিনাক্সের কার্নেল বিভিন্ন সংস্করণ তাদের পন্যের ইনস্টল করে বিক্রি করছে। যেমন-ডিভিআর, স্মার্ট টিভি, ওএমআর ইত্যাদির অনেক ব্র্যান্ডই লিনাক্স অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করছে।

Leave a Comment