এসইও টিউটোরিয়াল:: ব্যাকলিঙ্ক [পর্ব-১০]

সবাইকে আবারো সালাম ও শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু করছি আমার আজকের এসইও টিউটোরিয়াল । আমরা গত পর্বগুলোতে অনপেইজ এসইও এর অংশগুলো নিয়ে আলোচনা করেছিলাম । আজ থেকে আমরা শুরু করবো অফপেইজ এসইও ।

ব্যাকলিঙ্ক তৈরি করা অফপেইজ এসইও এর একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অংশ । ব্যাকলিঙ্ক প্রক্রিয়াটি হচ্ছে, আপনি কোন একটি সাইটে ভিজিট করলেন এবং সেখানে মন্তব্য আকারে নিজের সাইটটি দিয়ে দিলেন । এতে আপনার একটি ব্যাকলিঙ্ক তৈরি হল । তখন সেই সাইটের অন্য কোন ভিজিটর আপনার সাইটের সন্ধান পাবে । এছাড়া, ওয়েব পেইজ গুগল এর প্রথম পেইজ এ আনতে এবং সাইটের পেইজর‌্যাঙ্ক বাড়াতে ব্যাকলিঙ্ক বিশেষভাবে সহায়ক । আপনার ওয়েবসাইটের ভিজিটর এর উপর ভিত্তি করে গুগল আপনাকে একটি নম্বর দিবে সেটি-ই হচ্ছে সাইটের পেইজর‌্যাঙ্ক । আপনার সাইটটি ১০ নম্বর থেকে কত নম্বরে অবস্থান করছে তা ঠিক করে দিবে । এক্ষেত্রে, যদি কোন সাইটের পেইজর‌্যাঙ্ক ৭ হয় তাহলে বলা যাবে যে সেই সাইটের ভিজিটর, ব্যাকলিঙ্ক এবং কন্টেন্ট এর উপর ভিত্তি করে গুগল সাইটটিকে ৭ নম্বর দিয়েছে ।

যদি কোন সাইটের পেইজর‌্যাঙ্ক ৫-১০ এর মধ্যে হয় তাহলে সেই সাইটে কমেন্ট করার সিস্টেম থাকলে কমেন্ট করুন । মন্তব্য করার ক্ষেত্রে প্রাসঙ্গিকতা বজায় রাখুন এবং এমন কোন মন্তব্য করবেন না যেন তা স্প্যাম হিসেবে বিবেচিত হয় । এক্ষেত্রে,

  • বিভিন্ন আর্টিকেল এ একই মন্তব্য করবেন না ।
  • মন্তব্য করার সময় একটিমাত্র শব্দ (যেমন; 'Good, Nice, Fine') পরিহার করুন ।
  • আপ্রাসঙ্গিক মন্তব্য করবেন না ।
  • মন্তব্য করার সময় লেখককে উৎসাহ দেওয়ার চেষ্টা করুন ।

বুঝতে সমস্যা হলে কমেন্ট জানাতে ভুলবেন না, আজ এই পর্যন্ত ।

-ধন্যবাদ সবাইকে, ভাল থাকুন ।

8 thoughts on “এসইও টিউটোরিয়াল:: ব্যাকলিঙ্ক [পর্ব-১০]”

  1. ধন্যবাদ আপনার পোস্টের জন্য। আচ্ছা আমি যদি একই সাইটে বিভিন্ন আর্টিকেলের মন্তব্য করি এবং ব্যাকলিংক দেই তাহলে কি কোন সমস্যা হবে। একটু জানাবেন।

  2. অত্যন্ত সুন্দর একটি লেখা। আশা করি সবাই উপকৃত হবে। বিশেষ করে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন ওয়েব সাইটের জন্ম হচ্ছে। এই নতুনদের বেলায় আপনার আর্টিকেলটি অত্যন্ত উপকারী।
    http://www.suchipatro.com

  3. আমার একটি ওয়েবসাইট আছে কিন্তু তা গুগল সার্চ ইঞ্জিনে দেখাচ্ছে না আমি কিভাবে তা লিষ্টিং করতে পারি প্লিজ িএকটু জানাবেন।

Leave a Comment